মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে চলবে সাইকেল

মোবাইলের অ্যাপ থেকে নির্দেশ দিলেই দু’চাকার সাইকেল নিজে থেকে আপনার সামনে চলে আসবে। সাইকেলে চেপে প্যাডেল চালাতেই পারেন। কিন্তু না চালালেও সমস্যা নেই। অটো মোডে সাইকেল স্বয়ংক্রিয়ভাবে ছুটতে ছুটতে আপনাকে নির্দিষ্ট গন্তব্যে পোঁছে দেবে।

‘থ্রি ইডিয়টস’ ছবির র‌্যাঞ্চো এবং তার বন্ধুরা ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার সময়ে অবাক করে দেওয়া নানা যন্ত্রপাতি তৈরি করত। অনেকটা সেই কায়দায় অভিনব এই সাইকেল তৈরি করেছেন ‘ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউটস অব টেকনোলজি’র (আইআইটি) কয়েকজন ছাত্র।

এই সাইকেলের নাম দেওয়া হয়েছে ‘আই-বাইক’। শুধু কোথায় যাবেন, সাইকেলে চেপে সেই কম্যান্ড আপনাকে দিতে হবে। ব্যস, জিপিএস প্রযুক্তি ব্যবহার করে দিনে-রাতে রাস্তার যানজট, মানুষজন, গাড়ি-ঘোড়া এড়িয়ে নিজে নিজেই আপনাকে নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছে দিতে সক্ষম এই আই-বাইক।

দূষণহীন এই আই-বাইক লিথিয়াম ব্যাটারির সাহায্যে চলে। আসলে হলে নিজেরা যে সাইকেল চড়েন, সেই সাইকেলেই মেশিনারি কিট, কম্পিউটার রিসিভার কম্যান্ড জুড়ে এই আই-বাইক তৈরি করেছেন ওই ছাত্ররা। একই সঙ্গে প্রয়োজনীয় অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল অ্যাপও তৈরি করেছেন তারা।

এই আই-বাইক তৈরির পিছনে সব থেকে বেশি ভূমিকা নিয়েছেন আইআইটি চতুর্থ বর্ষের ইলেক্ট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র আয়ুষ পাণ্ডে।

তিনি জানিয়েছেন, বছর দেড়েক আগে হলে বন্ধুদের সঙ্গে গল্প করতে করতেই এমন সাইকেল তৈরির কথা মাথায় আসে। সাধারণ মানুষ ছাড়াও এই সাইকেল ব্যবহার করে শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধীরা উপকৃত হবেন বলেই দাবি তার। কারণ সাইকেলে ম্যানুয়াল এবং অটোমেটিক দু’টি মোডই রয়েছে।

সম্প্রতি পুনেতে একটি প্রদর্শনীতে এই আই-বাইক দেখিয়ে ৫ লাখ রুপি পুরষ্কার জিতে নিয়েছেন নির্মাতারা। আপাতত এই সাইকেলের পেটেন্ট সংগ্রহের প্রক্রিয়ায় ব্যস্ত তারা। এই ধরনের সাইকেল বিশ্বে এই প্রথম তৈরি হল বলে দাবি তাদের।

বাজারে এলে এই সাইকেলের সর্বাধিক দাম পড়তে পারে ৩০ হাজার রুপি।

পোষ্টটি লিখেছেন: বিশ্ব বিবেক

বিশ্ব বিবেক এই ব্লগে 3317 টি পোষ্ট লিখেছেন .

Loading...
পোস্টটি ভাল লাগলে লাইক দিন