হোম » বিনোদন » অভিনয়ে পরিণত হয়েছি তারেক মাসুদের হাত ধরে
অভিনয়ে পরিণত হয়েছি তারেক মাসুদের হাত ধরে

অভিনয়ে পরিণত হয়েছি তারেক মাসুদের হাত ধরে

স্বাধীন চলচ্চিত্র নির্মাণের ইতিহাসে কিংবদন্তি নির্মাতা তারেক মাসুদ। তাঁর ‘মাটির ময়না’ ও ‘অর্ন্তযাত্রা’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছিলেন নন্দিত অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী। তারেক মাসুদের সঙ্গী হয়ে গিয়েছিলেন বিশ্ব চলচ্চিত্রের সবচেয়ে বড় আসর কান ফ্যাস্টিভ্যালেও। শুধু নির্মাতাই নয়, তারেক মাসুদকে তিনি মনে করতেন ভাই, বন্ধু, অভিভাবক। শুটিং কিংবা শুটিংয়ের বাইরে তিনি সবসময় পাশে পেয়েছেন এ নির্মাতাকে। ২০১১ সালে ১৩ আগষ্ট এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান তারেক মাসুদ। আজ, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট এ নির্মাতার চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী।এ উপলক্ষে বাংলামেইলের জিজ্ঞাসার মুখোমুখি হয়েছেন রোকেয়া প্রাচী।

দেশের সব বড় বড় নির্মাতার সঙ্গেই আপনি কাজ করেছেন। নির্মাতা হিসেবে তারেক মাসুদের বিশেষত্বটা কোথায়?
তিনি চলচ্চিত্র শিল্পকে প্রাণ দিয়ে ভালোবাসতেন। সাধারণত অভিনয়শিল্পীদের সঙ্গে সিনেমার শুটিংয়ের পর যোগাযোগটা তেমন থাকেনা নির্মাতাদের। কিন্তু তারেক ভাইর সঙ্গে আমাদের তেমনটা ছিল না। ছবি শেষ হলেও সবার সঙ্গে তার সম্পর্কটা থেকেই যেত। সবাইকে নিয়ে পরিবারের মতো চলতেন। চলচ্চিত্র নিয়েই স্বপ্ন দেখেন। তাঁর মৃত্যু না হলে আমরা তাঁর সঙ্গেই থাকতাম।

মাটির ময়নায় আপনার যুক্ত হওয়ার অভিজ্ঞতা…
‘দুখাই’ করার পর আমার হাতে তেমন কোন কাজ ছিল না। মেয়েকে প্রতিদিন স্কুলে নিয়ে আসা-যাওয়া করতাম। স্কুল থেকে ফেরার পথে একদিন তারেক মাসুদ-ক্যাথরিন মাসুদের সঙ্গে দেখা হল। উনি জানালেন, আপনাকে আমাদের ছবি ‘মাটির ময়না’তে অভিনয় করতে হবে। সঙ্গে আপনার মেয়েও অভিনয় করবে। এরপরই আমি আর মেয়ে রিমঝিম অভিনয় শুরু করি। আমার মেয়ের চরিত্রের নাম আসমা। শুটিংয়ের সময়গুলো উপভোগ করেছি। যে কোন প্রয়োজনে তারেক ভাইকে কাছে পেয়েছি। যে কোন কথা অকপটে তারেক ভাইয়ের কাছে গিয়ে বলতে পেরেছি। ‘মাটির ময়না’-তে অভিনয়ের সময়টা আমার জীবনের খুবই একাকিত্বের একটা সময় ছিল। তখন তারেক ভাই এবং ক্যাথরিন আমার পাশে দাঁড়িয়েছে।

পোষ্টটি লিখেছেন: Ayon Hasan

Ayon Hasan এই ব্লগে 135 টি পোষ্ট লিখেছেন .

Close [X]