হোম » বিনোদন » সানি আসছে, এটা কি ঠিক হচ্ছে?
সানি আসছে, এটা কি ঠিক হচ্ছে?

সানি আসছে, এটা কি ঠিক হচ্ছে?

খবরে বেরিয়েছে আগামী সেপ্টেম্বরে ঢাকা আসছেন কানাডিয়ান পর্ণস্টার ও ভারতীয় চলচ্চিত্রের দ্বিতীয় সারির বিতর্কিত নায়িকা সানি লিওন। সানি লিওনকে নিয়ে এই উপমহাদেশের মানুষের বিশেষ করে তরুণ যুবাদের আগ্রহ একটু বেশীই।

জানা গেছে গুগলের সার্চেও নাকি তাকে অন্যদের তুলনায় বেশী খোঁজা হয়। কিন্তু সেটি কেন তা তো কারো অজানা নয়।পৃথিবীতে সবকিছুর দুটি রুপ রয়েছে। একটি ভালো আর একটি খারাপ। আর এই দুই পক্ষেই আপনি যথেষ্ট লোক খুঁজে পাবেন। বরং কোন কোন ক্ষেত্রে তো খারাপের পক্ষেই বেশী জনমত পাওয়া যায়। কারন এখন পৃথিবীতে তরুণদের অধিক্যই বেশী।

তারা মোহে মজে, চকচকে জিনিসে আকৃষ্ট হয়। কিন্তু পরিনত বয়সে ঠিকই বুঝতে পারে কোন পথটি সঠিক ছিল। যাহোক আবার ফিরে আসি সানি লিওন প্রসঙ্গে।গণমাধ্যমের বরাতে জানা গেছে সানি যে অনুষ্ঠানে আসবেন তার টিকিটের সর্বনিম্ন দাম রাখা হয়েছে ১৫ হাজার টাকা। এত টাকা বোধ হয় বলিউডের কোন প্রথম সারির তারকা আসলেও রাখা হয় না। কিন্তু সানির বেলায় কেন?

তার কারনটি হচ্ছে খোলামেলা, স্বল্পবসনা এই তারকাকে তো কোন উন্মুক্ত ময়দানে হাজির করা যাবে না। অনুষ্ঠানটি করতে হবে ইনডোরে। তাতে আরেকটি লাভও আছে। যারা ওর অনুষ্ঠানে যেতে চান তারা কিন্তু কাউকে দেখাতে চাননা আমি ওই অনুষ্ঠানে গিয়েছিলাম। গোপনে নিষিদ্ধ কর্ম সারার মত অবস্থা।বাঙ্গালী জাতি যে অতিথীপরায়ণ সে কথা তো নতুন করে বলার কিছু নেই। আমাদের এই সোনার দেশে কালে কালে বিভিন্ন দেশ থেকে কত বরেণ্য, মেধাবী আর জনপ্রিয় ব্যক্তিত্বের পদধূলি পড়েছে। আমরা তাদের কাছ থেকে জেনেছি তাদের সাফল্যের গোপন রহস্য। জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছা ব্যক্তিরা জানিয়েছেন কিভাবে তারা সফল হয়েছেন তাদের অঙ্গনে, তাদের কর্মে।

একই সাথে আমাদের করেছেন বিনোদিত।সানি লিওন আসবেন, অনেককে হয়তো বিনোদিতও করবেন। কিন্তু আমরা বা আমদের তরুণ সমাজ তার কাছে থেকে কি শিখবো? কি জানবো? কিভাবে সফল পর্ণস্টার হওয়া যায়। কিভাবে পর্ণস্টার থেকে ছায়ছবির জগতে আসা যায়। আমি আগেই বলেছি মানুষ বেঁচে থাকে, জনপ্রিয় হয় তার কর্মে। সেটি খারাপ-ভালো দুটির জন্যই।

মানব সেবা করে আইডল হওয়া যায়। আবার দেশ সেরা ডাকাত হয়েও কিন্তু কারো কারো প্রথপ্রদর্শক হওয়া যায়।বাংলাদেশে একটি ধারনা সবার মধ্যে জন্মেছে। সমাজ আক্রান্ত হতে পারে এমন খারাপ কোন ঘটনা ঘটার আশংকা থাকলে, সেটির প্রতিবাদ ধর্ম সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরাই করবেন। আর আমরা তাতে হয় সমর্থন দিব না হয় চুপ করে বসে থাকব। কিন্তু সেটি কি উচিত? সময় এসেছে ভালো-খারাপকে নিক্তি দিয়ে পরিমাপ করার। সব খারাপ কাজকে তো আমরা একসাথে একেবারে ঝেটিয়ে বিদায় করতে পারব না।

কিন্তু প্রতিবাদের ভাষা তাতে থেমে থাকলে চলবে কেন?সানি লিওনকে আমন্ত্র জানানো মানে তো তার কাজকে সম্মান জানানো। তার কাজকে উৎসাহিত করা। শুধু তাই নয় পরোক্ষভাবে আমাদের ছেলে-মেয়েদের কাছেও তুলে ধরা, তার কর্মটি কত সম্মানের, কতটা অনুকরণীয়। এই বাংলাদেশে আমরা হিন্দু, মুসলিম, খ্রিষ্টান, বৌদ্ধ কিংবা যে ধর্মের হই না কেন শালীনতা যে আমাদের ভূষণ।

আমরা বাঁচি পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ, সম্মান আর ধর্মীর অনুশাসনের মধ্যে। সেই দেশে যদি সানি লিওনরা দাপিয়ে বেড়ায়, তাহলে মনে রাখতে হবে আমরা আসলে পক্ষান্তরে আমাদের মেয়েদেরকে সানি লিওন হওয়ার পথেই উস্কে দিচ্ছি।

পোষ্টটি লিখেছেন: Bhinno

Bhinno News এই ব্লগে 79 টি পোষ্ট লিখেছেন .

An exclusive website for Bhinno News

-->