দারুণ সুখবর, বিদ্যুৎ ছাড়াই চলবে মাটির ফ্রিজ!

Loading...

যাদের ফ্রিজ কেনার স্বামর্থ্য নেই তাদের জন্য দারুণ সুখবর। স্বল্প আয়ের মানুষের জন্য মাটির ফ্রিজ তৈরি করে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন ভারতের গুজরাটের মনসুখভাই প্রজাপতি। মাটির তৈরি ফ্রিজ দেশটির গরিবদের ঘরের চাহিদা মিটিয়ে পাড়ি দিচ্ছে বিদেশেও।

হাইস্কুলের গণ্ডিও পেরোতে পারেননি গুজরাটের মনসুখভাই। দশম শ্রেণিতে পড়ার সময়ই স্কুল ছাড়েন তিনি। উত্তরাধিকার সূত্রেই জানতেন কুমারের কাজ। তাই মাটির হাড়িতে পানি ঠাণ্ডা থাকে তা জানতে তার বাকি ছিল না। পেশার খাতিরে চালাতেন একটা চা দোকান।

টালি তৈরির কাজও ছিল জানা। এসব কাজে সন্তুষ্ট ছিলেন না তিনি। চাচ্ছিলেন নতুন কিছু করতে। তাই মাটির হাড়ির প্রক্রিয়াকে কাজে লাগিয়ে একদিন তৈরি করে ফেললেন মাটির ফ্রিজ।

বিদ্যুৎ ছাড়াই চলবে মাটির ফ্রিজ। বাষ্পায়নে শৈত্যের সৃষ্টি হয়, বিজ্ঞানের এই সহজ নিয়মই কাজ করেছে তার রেফ্রিজারেটরে।

পুরোপুরি মাটির তৈরি রেফ্রিজারেটরে পানি ভরার ব্যবস্থা আছে। বাষ্পায়নেরও ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতে বিদ্যুৎ ছাড়াই ঠাণ্ডা থাকছে খাবার-দাবার। মাটি থেকে তৈরি বলে এর নাম দেয়া হয়েছে ‘মিট্টিকুল’। তিন হাজার রুপিতে ভারতে পাওয়া যাচ্ছে মাটির ফ্রিজ।

মিট্টিকুলের মাটির ফ্রিজ দেশ ছাড়িয়ে পাড়ি দিচ্ছে বিদেশেও। মিট্টিকুলকে আলাদা একটা কোম্পানির রূপ দিতে পেরেছেন মনসুখভাই। প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রপতি এপিজে আব্দুল কালামকে দেখিয়েও এসেছিলেন তার কীর্তি।

পরিবেশ রক্ষা ও স্বল্প আয়ের মানুষদের প্রত্যাহিক জীবনকে ছন্দময় করেছে তার তৈরি ফ্রিজ। খাবারও নষ্ট হচ্ছে কম। মিট্টকুলের পাশাপাশি মনসুখভাই বিভিন্ন মাটির তৈজসপত্র এবং পানির ফিল্টার উৎপাদন ও বাজারজাত করছেন।

পোষ্টটি লিখেছেন: বিশ্ব বিবেক

বিশ্ব বিবেক এই ব্লগে 3297 টি পোষ্ট লিখেছেন .

Loading...
পোস্টটি ভাল লাগলে লাইক দিন