শুক্রবার , ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫
হোম » তথ্যপ্রযুক্তি » পরকীয়ার ১০ জিবি তথ্য ফাঁস করল হ্যাকাররা
পরকীয়ার ১০ জিবি তথ্য ফাঁস করল হ্যাকাররা

পরকীয়ার ১০ জিবি তথ্য ফাঁস করল হ্যাকাররা

বিবাহিত নারী-পুরুষদের পরকীয়া সম্পর্কের জন্য বেশ জনপ্রিয় ‘অ্যাশলে ম্যাডিসন ডটকম’ সাইটটি। এই সাইটটি বিবাহিত নারী-পুরুষের পরকীয়ার সঙ্গী বা সঙ্গিনী ঠিক করে দেয়। তার বিনিময়ে টাকা নেয়। বিশ্বের ৫০টির মতো দেশে ৩ কোটি ৭০ লাখ বিবাহিত নারী-পুরুষ কানাডার এই ডেটিং সাইটটি ব্যবহার করে। সাইটটির স্লোগান হচ্ছে, ‘জীবন ছোট, একটি প্রেম করুন!’

মাস দুয়েক আগে ‘দ্য ইমপেক্ট টিম’ নামক একটি হ্যাকার সংগঠন পরকীয়া সম্পর্কের এই বিতর্কিত সাইটটি বন্ধের দাবী জানায়। কিন্তু অ্যাশলে মেডিসন কর্তৃপক্ষ হ্যাকারদের সেই হুমকিতে কর্ণপাত না করায় গত মাসে সাইটটি হ্যাক করে ব্যবহারকারীদের গোপনীয় তথ্য হাতিয়ে নেয় দ্য ইমপেক্ট টিম। পাশাপাশি হুমকি দেয় সাইট বন্ধ না করা হলে, ব্যবহারকারীদের গোপনীয় তথ্য ফাঁস করে দেওয়ার।

কিন্তু সেই হুমকিকে বিশেষ পাত্তা দেয়নি অ্যাশলে ম্যাডিসন সাইট কর্তৃপক্ষ। আর সেই অবজ্ঞার ফল এবার ভুগতে হচ্ছে তাদের গ্রাহকদের। দ্য ইমপ্যাক্ট টিম নামক হ্যাকার সংগঠনটি সম্প্রতি অ্যাশলে ম্যাডিসন সাইটটির ব্যবহারকারীদের প্রায় ১০ জিবি গোপনীয় তথ্য অনলাইনে প্রকাশ করেছে দিয়েছে।

আর অনলাইনে নিজেদের তথ্য প্রকাশ হওয়ায় শোরগোল পড়ে গেছে ব্যবহারকারীদের মধ্যে। বিবাহিত জীবনে নতুন সঙ্গীর খোঁজ দেওয়া অ্যাশলে ম্যাডিসন সাইটের স্লোগানে (জীবন ছোট, একটি প্রেম করুন!) উব্দুদ্ধ হয়ে ছোট জীবনে অ্যাফেয়ারের স্বাদ আনতে গিয়ে এখন মহাবিপাকে গ্রাহকরা। দাম্পত্য জীবনে ভাঙনের আশঙ্কায় বহু গ্রাহক। ব্যক্তিগত পরিচয় সামনে চলে আসায় অ্যাশলে ম্যাডিসনের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার কথাও ভাবছেন অনেকে।

এই সাইট ব্যবহারের পর ব্যক্তিগত তথ্য সংস্থার মূল তথ্যভান্ডার থেকে মুছে দেওয়ার জন্য ক্রেতারা সাইটটিকে অর্থ দিয়ে থাকেন। কিন্তু সাইটটি সেসব রেকর্ড মোছেনি। ফলে হ্যাকিংয়ের পর হ্যাকারদের হাতে চলে গেছে ব্যবহারকারীদের আসল নাম, প্রোফাইল, নগ্ন ছবি, ক্রেডিট কার্ডের তথ্য, ই-মেইল, বাড়ির ঠিকানাসহ সবিস্তার তথ্য। আর সাইটটির ব্যবহারকারীদের এরকম ১০ জিবি তথ্য ফাঁস করেছে দ্য ইমপেক্ট টিম, যেখানে ৩ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর তথ্য রয়েছে।

হ্যাকার সংগঠনটি আরো জানিয়েছে, তাদের কাছে সাইটটির ব্যবহারকারীদের হাজার হাজার নগ্ন ছবি রয়েছে। তবে সেগুলো প্রকাশ করবে না তারা।

বিজনেস ইনসাইডারের খবরে বলা হয়েছে, তথ্য ফাঁস হওয়া ব্যবহারকারীদেরকে আরেক উৎপাতের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। অনলাইনে ফাঁস হওয়া ডাটাবেজ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে একটি চক্র তাদের ব্ল্যাকমেইল করতে শুরু করেছে।

অনেকে জানিয়েছেন তারা এমনসব ই-মেইল পাচ্ছেন যেখানে লেখা রয়েছে, ‘দুর্ভাগ্যক্রমে আপনার অ্যাশলে মেডিসনের তথ্য জেনেছি। যদি চান, এই তথ্য সব জায়গায় ছড়িয়ে না পড়ুক, তা হলে টাকা দিন।’ কাউকে আবার বলা হয়েছে, ‘এই ঠিকানায় অর্থ পাঠান, ডিভোর্সের খরচ বাঁচান।’

এদিকে অ্যাশলে ম্যাডিসন কর্তৃপক্ষ বর্তমানে চেষ্টা করছে, তাদের ব্যবহারকারীদের তথ্যগুলোকে কপিরাইটের আওতায় নিয়ে আসতে। যাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম বা ফাইল শেয়ারিং সাইটে তথ্যগুলো শেয়ার করা না যায়।

পোষ্টটি লিখেছেন: Bhinno

Bhinno News এই ব্লগে 79 টি পোষ্ট লিখেছেন .

An exclusive website for Bhinno News

Close [X]