হোম » ধর্ম ও জীবন » “অফিসের কলিগের সাথে ও ঘনিষ্ঠ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে…” –

“অফিসের কলিগের সাথে ও ঘনিষ্ঠ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে…” –

জীবন থাকলে সম্পর্ক থাকবেই। আর সম্পর্ক থাকলে থাকবে সমস্যা। প্রতিদিন ফেসবুকের ইনবক্সে ও ই-মেইলে আমরা অসংখ্য সম্পর্ক ভিত্তিক প্রশ্ন পাই, যেগুলোর কথা হয়তো কাউকেই বলা যায় না। পাঠকদের করা সেইসব গোপন প্রশ্নের উত্তর দিতেই আমাদের নিয়মিত আয়োজন “প্রিয় সম্পর্ক”। আর সম্পর্ক ভিত্তিক সেই প্রশ্নগুলোর উত্তরে পরামর্শ দিচ্ছেন গল্পকার (AYON CHOWDHURY) এডিটর ইন চার্জ (লাইফ ও সায়েন্স),
আপনি চাইলে নিজের এমনই কোন একান্ত ব্যক্তিগত সমস্যার কথা লিখে জানাতে পারেন আমাদের। আমরা প্রতিদিন চেষ্টা করবো বাছাইকৃত কিছু সমস্যার সমাধানে কাঙ্ক্ষিত পরামর্শটি দেবার। সমস্যার কথা “বাংলায়” লিখে জানান আমাদের ফেসবুক পেজের ইনবক্সে। নাম গোপন রাখতে চাইলে লিখে দেবেন “নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক”। আমাদের পেজ লিঙ্ক- https://www.facebook.com/bhinno
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক তরুণী জানিয়েছেন নিজের সমস্যার কথা।

“অাপু আমি আপনাদের online page priyo life নিয়মিত পড়ি।অামি খুব সিদ্ধান্ত হীনতায় ভুগছি।অনেকেরই তো সমাধান দেন plz আপু অামার লিখাটা পড়বেন এবং অামার কী করা উচিত সেটা বলে দিবেন।
অামার বয়স ২০ বছর। চার বছর পূর্বে একটা ছেলের সাথে অামার সম্পর্ক হয়।অামার বিশ্বাস তখন সে অামাকে সত্যিই ভালবাসত। (এখনও বাসে কিন্তু মাঝখানে problem ছিল) সম্পর্কের এক বছর পর সে অামাকে বিভিন্ন মানসিক চাপ দিয়ে ওর সাথে শারীরিক সম্পর্ক তৈরী করতে বাধ্য করে।তখন অামি সবকিছু ভালভাবে বুঝতাম না। তখন নিজেকে খুব খারাপ মেয়ে মনে হত। অনেক বড় পাপী মনে হত।অামি তাকে বলি যে,আমার নিজেকে খুব নীচ মনে হয়।সে আমাকে বলত এগুলো কিছু না। তাছাড়া তুমি তো একাধিক ছেলের সাথে সম্পর্ক রাখ নাই। তাছারা অামরা তো বিেয় করব। তারপর থেকে আমরা এইভাবেই চলাফেরা করেছি।
কিন্তু সমস্যা হল এক বছর পূর্বে।সে একটা job করত।এক বছর পূর্বে ঐখানে একটা মেয়ে কলিগের সাথে ওর সম্পর্ক হয় এবং কিছু দিনের মধ্যেই ওদের শারীরিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এইভাবে তাদের সম্পর্ক ছয় মাস ছিল। এই ছয় মাস ছেলেটি আমাকে প্রায়ই ব্যস্ততা দেখাত।এর মধ্যে আমি একদিন ওর ফোনে sms দেখে সন্দেহ করা করলে ও অামাকে বলে সেটা ওর friend এর।এবং আমি ওকে সন্দেহ করেছি সেই অজুহাতে সে আমাদের সম্পর্ক ভেঙ্গে ফেলতে চায়।অামি নিজের ভুল মনে করে ওর কাছে ক্ষমা চাই।ওই মেয়ের সাথে সম্পর্ক থাকা অবস্থায় ও আমার সাথে ও শারীরিক সম্পর্ক চালিয়ে গেছে।ওর খুব রাগ। একটু ভুল-ভ্রান্তি হলেই ও রাগ দেখিয়ে সম্পর্ক না রাখার কথা বলত। অাজ থেকে চার মাস পূর্বে আমি নিশ্চিত হই ওর অন্য সম্পর্কের ব্যাপারে এবং আমি সম্পর্ক নষ্ট করতে চাই। ও আমার কাছে ক্ষমা চায়। আমার সামনে ঐ মেয়েকে বলে ও আমাকে ওর জীবনে চায়। আল্লার উপর ভরসা করে অামি ওকে ক্ষমা করে দিই। তার কয়েক দিন পর ঐ মেয়ে আমাকে ফোনে বলে যে আমার প্রেমিক তাকে বলেছে অামি মানসিক ভাবে ভেঙে পড়ব তাই সে সম্পর্ক ভাঙার নাটক করেছে ওই মেয়েটির সাথে এবং আমার বিয়ে হয়ে গেলে ওরা বিয়ে করবে। তারপর ওকে সব বলার পর ঐ মেয়ে সহ আমরা কথা বলি। মেয়েটি আমাকে বলা সব কথা ওর সামনে অস্বীকার করে। এবং বলে আমরা কেউ যেন ওকে ফোন না দিই।
তারপর আমাদের সম্পর্ক ভালই চলছিল। কিন্তু আমার মধ্যে সবসময় একটা ভয় কাজ করত।কিছুদিন পূর্বে একটু ঝগড়াতে ও আমার সাথে সম্পর্ক ভাঙ্গতে চাইল। আমি অনেক কান্নাকাটি করাতে ও normal হয়। এদিকে আমার পরিবার বিয়ের জন্য চাপ দিচ্ছে। ওর একটা বড় বোন বিয়ের উপযুক্ত।ও আমাকে বলসে বোনের বিয়ের পর আমার কথা পরিবারে জানাবে। এখন যাতে আমি পরিবারের পছন্দমত যেকোন বর পক্ষের সামনে বের হই। ও সবসময় proposal ফিরিয়ে দিবে (আড়ালে)। সেটা শুনে অনেক বার ভাবছি সম্পর্ক রাখব না।কিন্তু বার বার মনে হয়েছে আমি এমনভাবে সম্পর্ক নষ্ট করব না যে ও নিজের দোষ আমার উপর চাপাতে পারে। কিন্তু ও প্রায়ই আমার ছোটখাট ভুল ধরে সম্পর্ক ভাঙ্গতে চায়(দু মাস ধরে এ ধরনের কথা বলে নি)।ও যদি কোন excuse(আমার ছোটখাট দোষ ধরা) না দেখিয়ে বলত ও অন্য কাউকে ভালবাসে তাহলে আমি নিজেই সরে যেতাম।
ও বর্তমানে আমার সাথে শারীরিক সম্পর্ক চালিয়ে যেতে চায়।কিন্তু আমি এই নিয়ে মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পরেছি। প্রথমত পাপের ভয়, দ্বিতীয়ত সে কি সত্যি আমাকে ভালবাসে,আমাকে কি বিয়ে করবে সে ভয়। তাছাড়া ওর চাহিদা তে আমি বাধাঁ দিলে সারাক্ষণ রাগ দেখায়। ঠিকমত কথা বলে না।ওর কথা হল যেহেতু আমরা এই relation এ একবার চলে গেছি তাহলে এখন relation continue করতে অসুবিধা কী। তার কথা হল আমি পূর্বে ওর কথা মত চলতাম,এখন ওকে পূর্বের মত মান্য করি না।মাঝে মাঝে মনে হয় ও সত্যি আমাকে ভালবাসে। কিন্তু আমার প্রতি ওর অন্যায় feelings টা সরাতে পারছি না। আমি চাই সারা জীবন আমরা এক সাথে থাকি। আপু ওকে আমার কি বলে এসব থেকে বিরত রাখা উচিৎ আমি বুঝতে পারছি না। কিছু দিন পূর্বে শুধু মাত্র ওর অন্যায় চাহিদা পূরনের জন্য ওর সম্মতি নিয়ে গোপনে বিয়ে করতে চাইছি। কিন্তু ও আমাকে বলসে ও তার বাবা মার বিশ্বাস ভাঙ্গতে পারবে না।ও বলে এই ভুলটা(physical relation) আমরা যেহেতু করে ফেলেছি।এতে নতুন কিছু নেই। একটা ভুলের জন্য নতুন ভুল করে দুটি পরিবারের মানুষকে কষ্ট দেয়ার মানে হয় না।
জানি না গোপনে বিয়ে করলে সেটা কি আর ও বড় অপরাধ হবে কিনা।আমি ওকে খুব ভালবাসি।আমি চাই না দ্বিতীয় কোন পুরুষ আমার জীবনে আসুক। আপু এখন আমার কি করা উচিৎ? পরিবারিক ভাবে তো এখন সম্ভব না,আমি কি ওকে গোপনে বিয়ের জন্য চাপ দিব? আর তা না হলে ওর অন্যায় আবদার এর প্রতিবাদ কিভাবে করব?ওকে কি বলা উচিৎ?আমি খুব মানসিক চাপে আছি। plz আপু আমাকে একটু সমাধান দিন।কোন ভুল সিদ্ধান্তে যাওয়ার পূর্বে যত দ্রুত সম্ভব আমার কি করা উচিৎ পরামর্শ দিন আপু plz।”
পরামর্শ:

দেখ আপু, তুমি একের পর এক ভুলে জড়িয়ে যাচ্ছ। এবং এখনো সেই ভুলকে টেনে নিয়ে বেড়াচ্ছ। এটাই তোমার সবচাইতে বড় ভুল।
তপমার বয়স মাত্র ২০ বছর। এখনো জীবনের সিদ্ধান্ত নেয়ার কোন মানে নেই। দ্বিতীয়ত, শারীরিক সম্পর্কে যাওয়া তো আরও অনুচিত। একবার ভুলটা করে ফেলেছ বলে বারবার করে যেতেই অবে এমন কোন কথা নেই। আর সেই ভুলকে হালাল করতে একটা ভুল মানুষকে গোপনে বিয়ে করা অবে আরও বড় অপরাধ।
যে ছেলে ইচ্ছার বিরুদ্ধে শারীরিক সম্পর্কের জন্য চাপ দেয়, তুমি কি বুঝতে পারছ না যে সে তোমাকে ভালোবাসে না? যে পুরুষ সত্যি তোমাকে ভালবাসবে, সে কখনোই শারীরিক সম্পর্কের জন্য চাপ দেবেন না। বরং খুশি হবেন তোমার মানসিক দৃঢ়তা দেখে।
তুমি অবিলম্বে এই ছেলের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করো, আমার মনে হয় এটাই তোমার জন্য ভালো। সে তোমাকে দোষ দিল কি দিল না, সেটা নিয়ে এত মাথা ব্যথার কিছু নেই। তাঁর প্রেম করার একটাই উদ্দেশ্য, শারীরিক সম্পর্ক। মনে রাখবে, যে অন্য একটি মেয়েকে ঠকাতে পারে, সে কিন্ত তোমাকেও ঠকাতে পারে। আর আমার মনে হচ্ছে এই চেলেতি তোমাকে ঠকিয়েই যাচ্ছে। ভালোবাসা মানে কারো কথায় নিজের জীবন চালানো না আর তুমি প্রেমিকার দাস নও যে তাঁর সব কথা তোমাকে মানতে হবে।
photo source- knotinfocus.in

পোষ্টটি লিখেছেন: Ayon Hasan

Ayon Hasan এই ব্লগে 135 টি পোষ্ট লিখেছেন .

-->