ভিক্ষুকের আয় প্রায় প্রধানমন্ত্রীর সমান!!

ইংল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর পরেই সর্বোচ্চ আয় করেন এক ভিক্ষুক। ওই ভিক্ষুকের মাসিক আয় ১৮ লাখ টাকা। আর দৈনিক আয় ৬০ হাজার টাকা। এ হিসেবে তার মাসিক আয় দাঁড়ায় ১৮ লাখ টাকা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এ ভিক্ষুক ওয়েস্ট মিডল্যান্ডের উলভারহ্যাম্পটন সিটি সেন্টারের সামনে ভিক্ষা করেন। তিনি পথচারী ও শপিং করতে আসা মানুষকে টার্গেট করে ভিক্ষা চান। তিনি প্রকৃত ভিক্ষুক নয়। এ ব্যক্তির সুন্দর জীবযাপনের জন্য পর্যাপ্ত সম্পদ রয়েছে। তবুও তিনি গৃহহীন মানুষের ভান করে ভিক্ষা করেন।

ইংল্যান্ডের উইলবার হ্যাম্পটনের ৪৮ বছর বয়সী সিমন ডেনভার হোয়েক (বাঁয়ে) এবং ২৬ বছর বয়সী অ্যাশ কুপার (ডানে)। তারা দুজনেই এখন গৃহহীন।

ইংল্যান্ডের লেবার পার্টির কাউন্সিলর স্টিভ ইভান্স বলেন, ‘ওই ভিক্ষুকের বেশ সম্পদ রয়েছে। তিনি সারাদিন সিটি সেন্টারের সামনে বসে ভিক্ষা করেন। সারাদিনে তিনি ৬০ হাজার টাকা আয় করেন।’

তিনি বলেন, ‘কিছু মানুষের সত্যিই সাহায্য দরকার। কিন্তু কিছু ভুয়া ভিক্ষুক মহানুভবতার সুযোগ কাজে লাগাচ্ছে। আমি এটাকে গ্রহণযোগ্য মনে করি না। কিছু ভিক্ষুক আছে যারা মদ খাওয়ার জন্য ভিক্ষা করেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘কিছু পেশাদার ভিক্ষুকও রয়েছে। এখন ভুয়া ভিক্ষুকদের বিচারের মুখোমুখি করতে হবে। এজন্য স্থানীয় কর্মকর্তা, কাউন্সিল অফিস ও আদালতকে এক সঙ্গে কাজ করতে হবে।’

পল বার্ড ছয় মাস ধরে ভিক্ষা করেন। তার মায়ের মৃত্যুর পর এক দুর্ঘটনায় পড়ে তিনি ভিক্ষা করতে বাধ্য হচ্ছেন। পল বলেন, ‘যারা ভুয়া ভিক্ষুক তাদের সঙ্গে সত্যিকার ভিক্ষুদের এক শ্রেণিতে ফেলা যাবে না।’

এস.টি জর্জ হাউজ চ্যারিটির ম্যানেজার কেভিন স্টাউনটন জনগণের দৃষ্টি আর্কষণ করে বলেন, ‘আপনারা ভিক্ষুককে টাকা দেবেন না। ভিক্ষুককে টাকা দিলে পেশাদার ভিক্ষুকরা সুযোগ নেবে। আমাদেরকে সমস্যার মূলে যেতে হবে। ভিক্ষুককে টাকা না দিয়ে চ্যারিটি ফান্ডে টাকা দিন। আমরা প্রকৃত গৃহহীনদের টাকা পৌঁছে দেবো।’

ভিক্ষাবৃত্তি সংক্রান্ত আইন ১৮২৪ অনুযায়ী ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে ভিক্ষা করা নিষিদ্ধ। এ আইন অনুযায়ী ভিক্ষা করলে জেলে যেতে হবে।

পোষ্টটি লিখেছেন: বিশ্ব বিবেক

বিশ্ব বিবেক এই ব্লগে 3317 টি পোষ্ট লিখেছেন .

Loading...
পোস্টটি ভাল লাগলে লাইক দিন