এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বেতন ভাতার বিপরীতে গৃহ নির্মাণ প্রকল্প

tk_25197
Loading...

সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে প্রায় ৯৫ভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বেসরকারি এমপিওভুক্ত। এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রায় পাঁচ লাখ শিক্ষক শিক্ষকতার মহান পেশায় নিয়োজিত। এরা জাতীয় বেতন স্কেলের শতভাগ সরকার থেকে পেয়ে থাকেন।

অন্যান্য সুযোগ সুবিধার মধ্যে বাড়ি ভাড়া, মেডিকেল ভাতা, উৎসব ভাতা নাম মাত্র পেয়ে থাকেন। যার মধ্যে বাড়ি ভাড়া বাবদ পান মাত্র ৫০০/-(পাঁচশত টাকা)। যা অত্যন্ত হাস্যকর।
বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের কোথাও এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের পরিবার পরিজন নিয়ে একদিনের বেশী ভাড়া বাসায় থাকতে পারবেন কি না জানি না।

এটি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের সাথে এক প্রকার প্রহসন ছাড়া আর কিছুই নয়।
এই মহান পেশায় নিয়োজিত শিক্ষকদের জীবন মান উন্নয়নের দায়িত্ব রাষ্ট্র এবং সরকারকেই নিতে হবে। বর্তমান বাজারে একজন শিক্ষক প্লট কিনতে না পারলেও সাধ্যের মধ্যে একটি ফ্ল্যাট অথবা তাদের পৈতৃক নিবাসে গৃহ নির্মাণের জন্য অর্থ সহায়তা পেতে পারেন, যেটা তাদের বেতন ভাতার বিপরীতে কিস্তিতে পরিশোধ যোগ্য হতে পারে।

আমাদের দেশের প্রচলিত ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষকদের গৃহ নির্মাণ প্রকল্প চালু করলে, মানুষ গড়ার কারিগর এই শিক্ষকদের কিছুটা হলেও জীবন মান উন্নয়ন হবে বলে আমার বিশ্বাস। অতএব রাষ্ট্র এবং সরকার এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের জন্য এই ধরনের গৃহ নির্মাণ প্রকল্প চালু করা সময়ের দাবী।

লেখক: সৈয়দ শাহাদাত হোসাইন
সহকারি অধ্যাপক,
বাকলিয়া শহিদ এনএমএমজে ডিগ্রি কলেজ, চট্টগ্রাম।

পোষ্টটি লিখেছেন: বিশ্ব বিবেক

বিশ্ব বিবেক এই ব্লগে 3297 টি পোষ্ট লিখেছেন .

Loading...
পোস্টটি ভাল লাগলে লাইক দিন