এবার স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে ১৩ হাজার নিয়োগ হচ্ছে

Loading...

 

 

শূন্যপদ পূরণসহ বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ১৩ হাজার জনবল নিয়োগ দেবে সরকার। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয় এরইমধ্যে এ সংক্রান্ত আদেশ জারিসহ আনুষঙ্গিক কাজ শুরু করেছে।

নার্স নিয়োগের জন্য বিদ্যমান নিয়োগ প্রক্রিয়াও শিথিল করতে যাচ্ছে সরকার।

এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব আজ সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে উপস্থাপনের কথা আছে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব এরইমধ্যে মন্ত্রিসভায় উপস্থাপনের জন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পেশ করেছে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

সূত্র আরো জানিয়েছে, নিয়োগ প্রক্রিয়া শিথিলের পাশাপাশি কোটা পদ্ধতি বাতিলেরও প্রস্তাব করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। মন্ত্রিসভায় উপস্থাপনের জন্য পাঠানো সারসংক্ষেপে বলা হয়েছে, ‘সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি) গত ২৮ মার্চ ৩ হাজার ৬১৬টি সিনিয়র স্টাফ নার্সের শূন্য পদ পূরণের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে।

এরই মধ্যে ১৮ হাজার ৬৩টি আবেদন জমা পড়েছে। এর আগে কমিশন বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে, এমনকি বিসিএস পরীক্ষায় কারিগরি বা পেশাগত পদগুলো পূরণের ক্ষেত্রে প্রাধিকার বা বিশেষ কোটায় যোগ্য প্রার্থী না পাওয়ায় কোটাসংক্রান্ত সব শূন্য পদ পূরণ করতে পারেনি।

সে ক্ষেত্রে সরকারের স্বাস্থ্যসেবার মান নিশ্চিতকরণের এবং প্রধানমন্ত্রীর নার্স নিয়োগসংক্রান্ত প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন এবং দ্রুততম সময়ের মধ্যে নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করার লক্ষ্যে সিনিয়র স্টাফ নার্স নিয়োগের জন্য পরীক্ষা পদ্ধতি পরিবর্তন ও নিয়োগ প্রক্রিয়া শিথিল করা দরকার।’

এদিকে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এনটিভি অনলাইনকে জানান, বর্তমানে সারা দেশের মানুষের স্বাস্থ্যসেবার মান নিশ্চিত করার জন্য ১৩ হাজার নার্স প্রয়োজন।

এই নিউজের মূল সুত্রঃ এনটিভি

পোষ্টটি লিখেছেন: বিশ্ব বিবেক

বিশ্ব বিবেক এই ব্লগে 3317 টি পোষ্ট লিখেছেন .

Loading...
পোস্টটি ভাল লাগলে লাইক দিন