হোম » ভিন্ন খবর » কী দিয়ে এ ‘লজ্জা’ ঢাকবে ঢাকা?
কী দিয়ে এ ‘লজ্জা’ ঢাকবে ঢাকা?

কী দিয়ে এ ‘লজ্জা’ ঢাকবে ঢাকা?

টানা পঞ্চমবারের মতো বসবাসের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে ভালো শহরগুলোর মধ্যে সেরা হয়েছে মেলবোর্ন৷ বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকারও স্থান হয়েছে একটি তালিকায়৷ সেখানে সামান্য উন্নতিও দেখিয়েছে মহানগরী ঢাকা!

কিন্তু ঢাকার উন্নতিতে ঢাকাবাসীর খুশি হওয়ার কথা নয়, কেন না গত কয়েক বছরের মতো এবারও বসবাসের জন্য সবচেয়ে অনুপযোগী শহরের তালিকায় স্থান পেয়েছে ঢাকা৷ স্বান্তনা এইটুকুই – গত বছরের মতো এবার আর সবচেয়ে নিকৃষ্ট শহর হয়নি৷ এবার সবচেয়ে খারাপ শহর হয়েছে সিরিয়ার রাজধানী দামেস্ক৷ ঢাকা ব়্যাংকিংয়ে ১৩৯তম হয়ে খারাপদের মধ্যে দ্বিতীয় সেরা৷

দামেস্ক আর ঢাকার পরে রয়েছে যথাক্রমে পাপুয়া নিউগিনির পোর্ট মোরেসবি, নাইজেরিয়ার লাগোস, এবং লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলি৷

বসবাসের জন্য সবচেয়ে নিকৃষ্ট পাঁচ শহর

১. দামেস্ক, সিরিয়া, ব়্যাংকিং ১৪০

২. ঢাকা, বাংলাদেশ, ব়্যাংকিং ১৩৯

৩. পোর্ট মোরেসবি, পাপুয়া নিউগিনি, ব়্যাংকিং ১৩৮

৪. লাগোস, নাইজেরিয়া, ব়্যাংকিং ১৩৭

৫. ত্রিপোলি, লিবিয়া, ব়্যাংকিং ১৩৬

ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (ইআইইউ) বিশ্বের সবচেয়ে বসবাসোপযোগী শহরগুলোরও তালিকা করেছ বসবাসের জন্য সেরা পাঁচটি শহর

সেখানে আবার সবার ওপরে স্থান পেয়েছে মেলবোর্ন৷ অস্ট্রেলিয়ার এই শহরের ন্য অবশ্য এটা নতুন কিছু নয়৷ এই নিয়ে টানা পাঁচবার বসবাসের জন্য বিশ্বের সেরা শহর হলো মেলবোর্ন৷ মেলবোর্নের পরের পাঁচটি স্থানে রয়েছে অস্ট্রিয়ার ভিয়েনা, ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার নকুভার, ক্যানাডার টরন্টো এবং অস্ট্রেলিয়ার আরেক শহর অ্যাডিলেড৷

বসবাসের জন্য সেরা পাঁচ শহর

১. মেলবোর্ন, অস্ট্রেলিয়া

২. ভিয়েনা, অস্ট্রিয়া

৩. ভ্যানকুভার, ব্রিটিশ কলাম্বিয়া

৪. টরন্টো, ক্যানাডা

৫. অ্যাডিলেড, অস্ট্রেলিয়া

ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (ইআইইউ) প্রতিবছরই বসবাসের জন্য বিশ্বের সেরা এবং সবচেয়ে খারাপ শহর নির্ধারণ করে৷ শুধু পরিচ্ছন্নতা নয়, সেরা এবং সবচেয়ে খারাপ শহর বেছে নেয়া হয় স্বাস্থ্য সেবা, শিক্ষা, সংস্কৃতি পরিবেশ এবং অবকাঠামোগত সুযোগ-সুবিধার ভিত্তিতে৷

সেরা মেলবোর্ন
অস্ট্রেলিয়ার রাজধানী মেলবোর্ন সত্যিই অসাধারণ এক শহর৷ দ্য ইকোনমিস্ট ব়্যাকিংয়ে ৯৭ দশমিক ৫ পয়েন্ট দিয়ে সবার ওপরে রেখেছে মেলবোর্নকেই৷ দেখার মতো অনেক কিছুই আছে এ শহরে৷ ফেডারেশন স্কয়্যার, রয়্যাল বোটানিকেল গার্ডেন, মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ড, ইউরেকা টাওয়ার, এমনকি এখানকার চিড়িয়াখানায় গেলেও আপনি মুগ্ধ হবেন৷

একটু পিছিয়ে ভিয়েনামেলবোর্নের চেয়ে সামান্য পিছিয়ে ভিয়েনা৷ অস্ট্রিয়ার রাজধানী শহরটি পেয়েছে ৯৭ দশমিক ৪ ভাগ ব়্যাকিং ভোট৷ সেখানে গেলে কিন্তু হোফবুর্গ, স্প্যানিশ রাইডিং স্কুল, স্টিফেন্স ক্যাথেড্রাল এবং শহরের বিখ্যাত প্রাসাদ দেখে আসতে ভুলবেন না! এছাড়া এ শহরের ক্যাফেগুলো অসাধারণ৷ আর পায়ে ব্যাথা থাকলে ঘোড়ায় চড়েই দেখে নিতে পারেন মোৎসার্ট-এর এই শহর৷ক্যানাডার ভ্যানকুভারবন্দর নগরী ভ্যানকুভার৷ ব়্যাকিংয়ে পয়েন্টের দিক থেকে ক্যানাডার এই শহরও সেরা হওয়া মেলবোর্নের খুব কাছে৷ ৯৭ দশমিক ৩ পয়েন্ট পেয়ে তৃতীয় হয়েছে ভ্যানকুভার৷ এ শহরে পর্যটকদের প্রধান আকর্ষণের তালিকায় সবসময় স্ট্যানলি পার্ক, গ্র্যানভিল দ্বীপ, কিটসিলানো বিচ, গ্রাউস মাউন্টেন, চায়না টাউন, ক্যানাডা প্যালেসের মতো কিছু নয়নাভিরাম স্থান থাকেই৷

ক্যানাডার আরেক শহরক্যানাডায় যাবেন, রাজধানী টরন্টো দেখবেন না, তা হয়? ইকোনমিস্টের বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, মেলবোর্ন, ভিয়েনা বা ভ্যানকুভারের চেয়ে টরন্টোও শান্তিতে বসবাসের জন্য কোনো অংশে কম উপযোগী নয়৷ তাই ৯৭ দশমিক ২ পয়েন্ট পেয়েছে টরন্টো৷ এ শহর যাঁরা একবার ভালো করে ঘুরে দেখেছেন, তাঁরা ন্যাশনাল টাওয়ার, সিটি হল, ইয়ঙ্গে-ডুন্ডাস স্কয়্যার, সেন্ট মাইকেল ক্যাথেড্রালের মতো জায়গাগুলোর কথা কোনোদিন ভুলতে পারবেন না৷

এবং অ্যাডিলেডতালিকাটি শেষ হয়েছে অস্ট্রেলিয়ারই আরেক শহর অ্যাডিলেডকে দিয়ে৷ অ্যাডিলেড পেয়েছে ৯৬ দশমিক ৬ পয়েন্ট৷ সাউথ অস্ট্রেলিয়া রাজ্যের রাজধানী অ্যাডিলেড অস্ট্রেলিয়ার পঞ্চম বৃহত্তম শহর৷ তবে শুধু আয়তনের জন্যই নয়, সৌন্দর্যের জন্যও শহরটি খুব উল্লেখযোগ্য৷ এ শহরে আর্ট গ্যালারি অফ সাউথ অস্ট্রেলিয়া, সাউথ অস্ট্রেলিয়া মিউজিয়াম, গ্লেনলেগ গ্রাম, ফেস্টিভ্যাল সেন্টারের মতো অনেক জায়গা আছে, যেসব দেখে না এলে পস্তাতে হয়৷

পোষ্টটি লিখেছেন: Bhinno

Bhinno News এই ব্লগে 79 টি পোষ্ট লিখেছেন .

An exclusive website for Bhinno News

-->