শিক্ষকদের এমপিওভুক্তি প্রসঙ্গে অধিদপ্তরের মতামত

Loading...

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক মনোনীত শিক্ষকরা নির্ধারিত স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানে নিয়োগের পর তাদের এমপিওভুক্তির বিষয়টি কেমনে হবে? সৃষ্ট পদের বিপরীতে মনোনীতরা আদৌ এমপিওভুক্ত হবেন কিনা? আবার শূন্য পদের বিপরীতে মনোনীতরা নিয়োগের পর থেকেই এমপিওভুক্ত হবেন কিনা; না আবার এমপিওভুক্তির জন্য আবেদন করে তাদেরকে অপেক্ষা করতে হবে এনব বিষয়ে প্রার্থীদের মনে নানা প্রশ্ন।

গত ৯ অক্টোবর প্রকাশিত তালিকায় বেসরকারি স্কুল ও কলেজের জন্য শিক্ষক হিসেবে মোট মনোনীত হয়েছে ১২ হাজার ৬১৯ জন। এদের মধ্যে আবার অনেকে একাধিক পদের বিপরীতেও মনোনীত হয়েছেন। তালিকা প্রকাশের পরপরই এসব প্রশ্ন সামনে চলে এসেছে।
এক প্রশ্নের জবাবে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মাধ্যমিক শাখার পরিচালক প্রফেসর মো. এলিয়াছ হোসেন বৃহস্পতিবার টেলিফোনে দৈনিকশিক্ষাকে বলেন, এমপিওভুক্ত বিষয়গুলোর শূন্য পদের বিপরীতে মনোনীত প্রার্থীরা সকলেই এমপিওভুক্ত হবেন। তবে মনোনীত প্রার্থীদের সরাসরি এমপিওভুক্ত হওয়ার কোন সুযোগ নেই। এমপিওভুক্তির জন্য প্রার্থীদের সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ পাওয়ার পর আলাদাভাবে এমপিওভুক্তির জন্য আবেদন করতে হবে। আবেদন করা ছাড়া কোনভাবেই এমপিওভুক্ত হবে না।

অপরদিকে সৃষ্ট পদে মনোনীতদের এমপিওভুক্তির বিষয়ে এলিয়াছ হোসেন বলেন, তাদেরকেও সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ পাবার পর এমপিওভুক্তির জন্য আবেদন করতে হবে। যেহেতু সৃষ্ট পদের বিষয়গুলো এমপিওভুক্ত নয় তাই তারা শুরু থেকে থেকেই এমপিওভুক্ত হবেন না।

প্রক্রিয়া অনুযায়ী সৃষ্টপদের বিষয়গুলো এমপিওভুক্ত হবার পর এ বিষয়ের অন্তর্ভূক্ত শিক্ষকরা এমপিওভুক্ত হবেন। তবে সৃষ্টপদগুলোর বিপরীতে শিক্ষকদের আগে থেকেই এমপিওভুক্তির জন্য আবেদন করে রাখা ভালো। কারণ কোন না কোন সময় এ সৃষ্টপদগুলো তো এমপিওভুক্তির আওতায় চলে আসবেই।

সৃষ্টপদে বৌদ্ধ ধর্ম বিষয়ক একজন মনোনীত শিক্ষক এমপিওভুক্ত হবেন কী-না এমন প্রশ্নের জবাবে মাউশির উপ-পরিচালক মো: মোস্তফা কামাল দৈনিকশিক্ষাকে বৃহস্পতিবার বলেন, “যদি ৪০ জন বৌদ্ধ শিক্ষার্থী থাকে এবং পদ সৃষ্টির সব বিধান মেনে পদ সৃষ্টি করা হয় তবে অবশ্যই এমপিওভুক্ত হবেন।”
নন-এমপিও প্রতিষ্ঠানে মনোনীতদের এমপিওভুক্তির কোনো সুযোগ আপাতত নেই।

পোষ্টটি লিখেছেন: বিশ্ব বিবেক

বিশ্ব বিবেক এই ব্লগে 3304 টি পোষ্ট লিখেছেন .

Loading...
পোস্টটি ভাল লাগলে লাইক দিন