যে ধরনের বন্ধুদের এড়িয়ে চলাই মঙ্গল

যে ধরনের বন্ধুদের এড়িয়ে চলাই মঙ্গল

জীবনে বন্ধুদের প্রয়োজনীয়তা কেউ অস্বীকার করতে পারে না। কিন্তু শুধু বন্ধু হলে হয় না। তার জন্য সবার আগে বোঝার চেষ্টা করা উচিত আপনি যার সঙ্গে বন্ধুত্ব গড়েছেন তার স্বরূপটা কী। সত্যিই কি নিখাদ বন্ধুত্ব নাকি অন্য কোনও স্বার্থ জড়িয়ে আছে বন্ধুত্বে। আসল কথা কি জানেন তো, বন্ধু ভাবলেই সবাই বন্ধু হয়ে যায় না। সবার বন্ধুত্ব আসল হয় না। বন্ধু সে যার কাছে আপনি নিজের মনের সব কথা খুলে বলতে পারবেন। যে আপনার সুখের পাশাপাশি দুঃখের সময়ওই আপনার হাত ধরে থাকবে।

আপনার ছোট ছোট গোপন কথাও নিজের মনের মধ্যে লুকিয়ে রাখবে। যাদের সঙ্গে থাকলে সময় কীভাবে কেটে যায় বোঝাও যায় না। যাকে নিয়ে চরম মজা করা যায়,অথচ সে ভ্রু পর্যন্ত কুঁচকোয় না। এমন আরও কতও উদাহরণ রয়েছে যা বলে শেষ করা যাবে না। কিন্তু সবাই তো আর সমান হয় না। আসল বন্ধুত্ব পাওয়াটা ভাগ্যের বিষয়। তবে সবসময় ৬ ধরণের বন্ধুদের এড়িয়ে চলার চেষ্টা করবেন। কোন ৬ ধরণের বন্ধুদের এড়িয়ে চলবেন তা নিচে দেয়া হল।

১. প্রাক্তন প্রেমিক বা প্রেমিকার সঙ্গে বন্ধুত্ব
আপনি যদি আপনার প্রাক্তন প্রেমিক বা প্রেমিকার সঙ্গে বন্ধুত্ব রাখার সিদ্ধান্ত নেন, তাহলে কিন্তু নতুন সম্পর্কের কথা তাদের কাছ থেকে এড়িয়ে চলুন। সবক্ষেত্রে বলছি না, কিন্তু বহু ক্ষেত্রেই দেখা যায় প্রাক্তন হলেও বন্ধুত্বের হাত ধরে তারা আবার আপনার জীবনে ফেরত আসতে চায়। সম্পর্কের নাম বন্ধুত্ব দিলেও প্রাক্তন সম্পর্কের রেশ থেকে তারা বেরতে পারে না।

২. অতি সহজে যারা মানুষকে বিচার
ছোট খাটো কোনো ঘটনা দিয়েই যারা মানুষকে বিচার করে তেমন মানুষকে বন্ধু হিসাবে না দেখাই ভাল। অর্থাৎ কোনও একটা ঘটনার ভিত্তিতে কারোর সম্পর্কে ধারণা বানিয়ে ফেলেন অনেকে। পরে যদিও তারা ভুল প্রমাণিত হন। কিন্তু মুশকিলটা হল এই ধরণের বন্ধু থাকলে কোনও না কোনও ভাবে আপনার নিজস্ব চিন্তাভাবনাও প্রভাবিত হবে। আপনিও তাদের মতো করে ভাবতে শুরু করতে পারেন যা ঠিক নয়। তাই এই ধরণের মানুষ এড়িয়ে চলাই শ্রেষ্ঠ।

৩. নেতিবাচক
যে মানুষরা সবসময় নেতিবাচক চিন্তাভাবনাই ভালবাসেন, তাদেরকেও চেষ্টা করুন এড়িয়ে চলতে। কারণ তাদের কথার মধ্যে সবসময় যে নেতিবাচক আচরণ লক্ষ্য করা যায়, তাদের সেই নেতিবাচক আচরণ আপনার অজান্তেই আপনার মনেও বাসা বাধতে পারে।

৪. স্বার্থলোভী
এমন বহু মানুষ আছেন য়ারা শুধুমাত্র নিজেদের সুবিধার জন্য বন্ধুত্ব করেন। পয়সার নিরিখে আপনার মূল্যায়ন করে। আপনার সময় খারাপ এলে তার আপনার অলক্ষ্যে ধীরে ধীরে রাস্তা গুটিয়ে পগাড়পাড় হয়ে যায়। তখন আপনি কষ্ট পান। তার থেকে চেষ্টা করুন মানুষ চেনার। এবং তারপর বন্ধুত্ব গড়ে তুলুন।

৫. পরনিন্দা পরচর্চা
আপনার বন্ধুদের মধ্যে দেখবেন যারা অন্য কাউকে নিয়ে বেশি আলোচনা বা চর্চা করছেন তাদের প্রথম থেকেই একটু এড়িয়ে চলুন। কারন অন্য লোকের কথা যেমন সে আপনার কাছে বলছে, মাথায় রাখবেন আপনার কথাও কিন্তু তেমন ভাবেই অন্য লোকের কাছে যাচ্ছে।

৬. যাদের চাহিদা বেশি
আপনার যে বন্ধুরা নিজের কাজ হাসিলের জন্য যদি আপনাকে কোনওভাবে চাপ দেয়, তাহলে বুঝে যাবেন একে এড়িয়ে চলাই মঙ্গল।

পোষ্টটি ভাল লাগলে, শেয়ার করে সবাইকে জানিয়ে দিন।

আপডেট নিউজ পেতে আমাদের ফেইজবুক পেইজে লাইক দিতে ক্লিক করুন এখানে।

পোষ্টটি লিখেছেন: Bhinno

Bhinno News এই ব্লগে 739 টি পোষ্ট লিখেছেন .

ভিন্ন.কম একটি ভিন্ন ধর্মী অনলাইন পোর্টাল। এখানে পাবেন অনলাইন আয়, জাতীয়, ইন্টারনেট, এন্ড্রয়েড, খেলাধুলা, শিক্ষা, চাকুরী, টিপস এন্ড ট্রিকস, ফ্রি নেট, বিনোদন, বিজ্ঞান ও প্রয়ুক্তি সহ সকল ধরনের তথ্য। আপনি ও লিখতে এই ব্লগে লিখার জন্য নিবন্ধন করুন

পোস্টটি ভাল লাগলে লাইক দিন