আপু সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত ও আমাকে….

Loading...

ভিন্ন.কম ডেস্ক: আমরা সব সময় বলে থাকি যে, জীবন থাকলে সমস্যা থাকবে,আর সমস্যা থাকলে উত্তরনের উপায় ও থাকবে,কিছু কিছু সমস্যা প্রকট অবার কিছু সমস্যা সামান্য। তবে সব সমস্যাই সমস্যা, আর এই সব সমস্যা মোকাবেলা করে জীবন কে এগিয়ে নিতে হবে আমি সোমা কামাল সবাইকে এটাই বলে থাকি সব প্রশ্নের উত্তরে। প্রতিদিন আমরা অগণিত মেইল ও মেসেজ পেয়ে থাকি পাঠকের নির্বাচিত কিছু প্রশ্নের উত্তর আমরা দেবার চেষ্টা করি।

ঠিক তেমনি আজকেও আমাদের একজনের চিঠি ছোট করে প্রকাশ করে সেটার উত্তর দিচ্ছি..… আপনিও চাইলে আপনার যেকোন সমস্যার কথা আমাদেরকে মেইল করতে পারেন কিংবা ফেসবুক পেজের মাধ্যমে জানাতে পারেন, আমাদেরকে লেখার ঠিকানা: info@bhinno.com. অথবা www.facebook.com/bhinnotips

(রিফাত)ছদ্মনামঃ

আপু/ভাইয়া,আশা করি ভালো আছেন,হয়তো আমার লেখা পাবার পরে জিজ্ঞেস করবেন আমি কেমন আছি কিন্তু তার প্রতিউত্তরে আমি কিছুই বলতে পারতাম না শুধুই চেয়ে থাকতাম কারণ এই মুহুর্তে আমার কিছুই বলার নেই,বলতে পারেন আমি নির্বাক,আর নির্বাক কেনোই বা হবো না,দিনে দিনে যা হচ্ছে তাতে করে কিছুই বলার চেয়ে নির্বাক থাকাটাই বোধহয় ভালো,আচ্ছা এবার মুল কথাই আসি আমি অনেকদিন থেকে আপনাদের লেখা পড়ছি,অনেক মেয়েই তাদের কষ্টের কথা শেয়ার করে যেগুলো আসলে ভাবতেই অবাক লাগে,গত কয়েকদিন থেকে ভাবলাম আমার ঘটনাটি আপনাদেরকে জানানো প্রয়োজন,তাই আজকে লিখেই ফেললাম,ঘটনাটির সুত্রপাত বছরখানেক আগে শাওনের সাথে আমার ফোনে পরিচয় হয়,শুরুতেই কথা বলতে চাইনি কিন্তু কিভাবে যে কি হয়ে গেলো,প্রথমে কথা তারপর বন্ধুত্ব এবং সর্বশেষ যেটা হয় সেটাই হলো ভালবেসে ফেললাম.

এভাবেই চলছিলো বেশ ভালোই,আমি ওকে ছবি দিতে বললাম,ছবি দেখলাম, তারপর স্কাইপে কথা বললাম,আমার এত ভালোলাগলো শাওন কে দেখে সেটা আসলে বলে বোঝাতে পারবো না,আমাদের মধ্য প্রায় সব বিষয়েই কথা হতো নিয়মিত,আমি ফ্রি হতাম সন্ধ্যার পরে তারপর শাওন কে নিয়ে ব্যস্ত থাকতাম, আপু এভাবেই প্রতিদিন সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত ও আমাকে বিভিন্ন বিষয়ে ব্যাস্ত রাখতো.

একদিন সময় করে দেখা করতে চেয়েছি,দেখা করার স্থান শান্তিনগরের সয়াসদি চাইনিজ রেস্টুরেন্ট,প্রথমে ও বসুন্ধরা মার্কেটে এলো,প্রথম দেখাতেই সত্যি আমি চরম অভিভূত,স্কাইপ তে যা দেখেছিলাম বাস্তবে তার থেকে আরো বেশী স্মার্ট,ওকে নিয়ে আমি কেনাকাটা করলাম দুইজনের বিল হলো প্রায় বারো হাজার টাকা,তারপর গেলাম রমনা পার্কে তারপর সেই সয়সদি রেস্টুরেন্টে অনেক গল্প হলো দুইজন মিলে ডিনার করলাম, এখানে বিল হলো সাত হাজার টাকা, রাত একটু বেশী হয়ে যাচ্ছিল তাই শাওন বাসায় যাবার জন্য অস্থির হয়ে যাচ্ছিল,আমি ওকে সিএনজি তে উঠিয়ে দিলাম,কিন্তু দুঃখের বিষয় সেই যে গেলো আর এলো না,তারপর থেকে মোবাইল নাম্বার বন্ধ এবং ফেসবুক থেকে শুরু করে সবকিছুতেই সে উধাও.

আপু আমার একদিনেই ওর পিছনে খরচ হলো প্রায় বিশ হাজার টাকা,তাছাড়া অনেক সময় আমি ওকে মোবাইলে লোড দিয়ে দিতাম,বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গিফট পাঠাতাম,সব মিলে আমার প্রায় পঞ্চাশ হাজার টাকা খরচ হয়েছে,কিন্তু লাভ কি হলো,এত সুন্দর দেখতে পুরাপুরি মেয়ে যে ভন্ড হবে সেটা ত আগে বুঝতে পারিনি.

আপু আপনারা ত সবসময় ছেলেদেরকে খারাপ বলেন আর এই মেয়ে যে আমার কস্টের টিউশনির টাকা গুলো প্লান করে নিয়ে ভেগে গেলো,এখন কি বলবেন আমাকে?
আমি সকল পাঠকদের কাছে প্রশ্ন ছুড়ে দিলাম এইসব মেয়েদের কিভাবে কি করা উচিত সেটা আপনারাই বলুন.

পরামর্শঃ তোমার মনের অবস্থা বুজতে পারছি, এই বিষয়ে সকলকে সাবধান করা ছাড়া আর কিছুই বলার নেই, যেহেতু অনেক কস্ট করে কিছু টাকা খরচ করেছো সেহেতু দেখো পাঠকরা কি বলে হয়তো অনেকের অনেক কথা শুনে তুমি নিজের দুঃখটা হালকা করতে পারবে

অন্যরা যা পড়ছেনঃ

পোষ্টটি লিখেছেন: বিশ্ব বিবেক

বিশ্ব বিবেক এই ব্লগে 3297 টি পোষ্ট লিখেছেন .

Loading...
পোস্টটি ভাল লাগলে লাইক দিন